জীবনের ঝরাপাতা গ্রন্থটির ইতিহাস চর্চার ক্ষেত্রে গুরুত্ব

Madhyamik History Model Questions| মাধ্যমিক ইতিহাস মডেল প্রশ্ন |

প্রশ্ন:- জীবনের ঝরাপাতা গ্রন্থটি ইতিহাস চর্চার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ কেন আলোচনা করো |

উত্তর :

ভূমিকা :- সরলা দেবী চৌধুরানী এর আত্মজীবনী ‘জীবনের ঝরাপাতা’ এক বালিকার পূর্ণ নারী হয়ে ওঠার এক অনুপম রচনা। আত্মকথন ছাড়াও সমকালীন দেশের রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক জীবনের অনবদ্য সব ঘটনা বিবৃত হয়ে আছে এর পাতায় পাতায়।

প্রকাশ কাল : ‘জীবনের ঝরাপাতা’ কাহিনীটি দেশ পত্রিকায় ১৯৪৪-৪৫ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হয়েছিল। পরবর্তীতে ১৯৭৫ খ্রিস্টাব্দে আন্তর্জাতিক নারী বর্ষে এটি গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হয়।

ঐতিহাসিক গুরুত্ব : জীবনের ঝরাপাতা থেকে সমকালীন ইতিহাসের বহু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যায়। যেমন –

(i) ঠাকুরবাড়ির অন্দরমহল : এই গ্রন্থ থেকে ঠাকুর বাড়ির শিশুদের জীবনচর্চা, দুধমা-ধাইমা দিয়ে সন্তান পালন, গৃহশিক্ষক প্রথা, শাড়ি পরার আধুনিক রীতি, নারী শিক্ষা, জন্মদিন পালন ইত্যাদি কথা জানা যায়।

(ii) স্বাদেশিকতা : বঙ্গভঙ্গ ও স্বদেশী আন্দোলনের সময় সরলা দেবী চৌধুরানী স্বদেশী দ্রব্যের উৎপাদন ও ব্যবহারের উদ্দেশ্যে লক্ষীর ভান্ডার নামে একটি প্রতিষ্ঠান স্থাপন করেছিলেন। তাঁরই উদ্যোগে ১৯১১ খ্রিস্টাব্দে ভারত স্ত্রী মহামন্ডল প্রতিষ্ঠা করা হয়।

(iii) রাজনৈতিক কার্যকলাপ : বাঙ্গালীদের স্বাধীনতা সংগ্রামে উপযুক্ত করার উদ্দেশ্যে, তাদের অস্ত্র শিক্ষা প্রদানের জন্য গড়ে তোলেন প্রতাপাদিত্য উৎসব, উদয়াদিত্য উৎসব, বীরাষ্টমী ব্রত ইত্যাদি। বিপ্লবী আন্দোলনের সাথে সরলাদেবীর জড়িয়ে থাকার কথাও জানতে পারা যায়।

(iv) নারী ইতিহাস রচনার উপাদান : প্রাথমিক ভাবে এই গ্রন্থটি সরলাদেবী সম্পর্কে জানতে এবং উনিশ শতকে নারীদের ক্ষমতায়ন ও নারী জাগরন সম্পর্কে জানতে আকর উপাদান হিসাবে কাজ করে থাকে।

(v) উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিদের পরিচয় : উনিশ শতকের উল্লেখযোগ্য স্মরণীয় নানা ব্যক্তিদের কথা জীবনের ঝরাপাতায় উঠে এসেছিল। এদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, স্বামী বিবেকানন্দ, ভগিনী নিবেদিতা, বাল গঙ্গাধর তিলক, মহাত্মা গান্ধী, বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, লালা লাজপত রায়, প্রমুখ।

সীমাবদ্ধতা : ইতিহাসের উপাদান হিসাবে জীবনের ঝরাপাতার বেশ কিছু সীমাবদ্ধতার দিকের কথা উল্লেখ করা যায়। সরলাদেবীর এই আত্মজীবনীটিতে তার সমগ্র জীবনের পরিচয় পাওয়া যায় না। এই আত্মজীবনীটিতে ভারতের জাতীয়তাবাদী আন্দোলন ও নারী জাগরনে সরলাদেবীর সমগ্র কর্মকান্ড ও দৃষ্টিভঙ্গির সম্পূর্ণ প্রতিফলন ঘটে নি।

উপসংহার : জীবনের ঝরাপাতা ইতিহাসের ভেতর আরেক ইতিহাস। গ্রন্থটি সেই যুগের শ্রেষ্ঠ মনীষীদের ও শ্রেষ্ঠ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিল। লেখিকার লিখন শৈলীর জন্য এই গ্রন্থটি উনিশ শতকে ইতিহাস রচনার এক উল্লেখযোগ্য উপাদান হিসেবে চিহ্নিত।

Welcome Visitor

Rlearn Education
error: Content is protected !!