জৈবিক আবহবিকারের প্রক্রিয়া | উচ্চমাধ্যমিক ভূগোল

জৈবিক আবহবিকার কাকে বলে :
উদ্ভিদ ও প্রাণীর দ্বারা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে শিলার বিয়োজন ও বিচূর্ণ ঘটলে তাকে জৈবিক আবহবিকার বলে। প্রায় সব ধরনের জলবায়ু অঞ্চলেই জীবগোষ্ঠী শিলার আবহবিকার ঘটতে সাহায্য করে।

জৈবিক আবহবিকার এর প্রধান প্রক্রিয়া গুলি হল :


1. জৈব – যান্ত্রিক আবহবিকার :


A) প্রাণীর সাহায্যে : মাটিতে বসবাসকারী বিভিন্ন প্রাণী যেমন-, কেঁচো , ইঁদুর , প্রেইরি কুকুর , শিয়াল , খরগোস , উইপোকা , বিভিন্ন মূষিক জাতীয় প্রাণী শিলাস্তরের মধ্যে গর্ত খুড়ে জৈব – যান্ত্রিক আবহবিকারে সাহায্য করে । এই সকল প্রাণীরা শিলাস্তরে এবং শিথিল পদার্থের মধ্যে গর্ত ও গুহা তৈরি করে । উইপোকা মাটি খুড়ে ভূপৃষ্ঠের নীচের স্তরের মাটি ও শিলা ভূপৃষ্ঠের ওপরের স্তরে নিয়ে এসে শিলার আবহবিকারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেয় । মাটিতে বসবাসকারী প্রাণীরা তাদের নিশ্বাসের সাথে যে CO2 ত্যাগ করে তা মাটির অভ্যন্তরস্থ শিলা ও মাটির চরিত্রের পরিবর্তন ঘটিয়ে মৃত্তিকার আবহবিকার ঘটায় । মানুষ খনিজ দ্রব্য উত্তোলন , কৃষিকাজ , রাস্তাঘাট নির্মাণ , অবিবেচনাপ্রসূত কার্যকলাপ প্রভৃতি কাজের মাধ্যমে দ্রুত শিলার আবহবিকার ঘটাতে সাহায্য করে ।

B) উদ্ভিদের সাহায্যে : উদ্ভিদের শিকড় মাটির মধ্যে প্রবেশ করলে মাটিতে ফাটল সৃষ্টি হয় ও শিলাসমূহ চূর্ণবিচূর্ণ হয় । উদ্ভিদের শিকড় 175 ফুট পর্যন্ত মাটির গভীরে প্রবেশ করতে পারে । এর সাহায্যে শিলার যান্ত্রিক আবহবিকার ঘটে । ঘন উদ্ভিদের আবরণ ভূমিভাগের কাছাকাছি অনুকূল অবস্থার সৃষ্টি করে । মূলজ শ্বসন , হিউমাস , মাটির আর্দ্রতা , জৈব কার্বন ডাইঅক্সাইডের পরিমাণ , স্বল্প উষ্ণতা প্রভৃতি মাটিতে জৈব – যান্ত্রিক আবহবিকারে সহায়তা করে ।

2. জৈব – রাসায়নিক আবহবিকার :


a) শিলাস্তরের ওপরে জন্মানো লাইকেন পচে গিয়ে হিউমাস তৈরি করে । ওই হিউমাস মৃত্তিকায় অবস্থিত জলের সঙ্গে মিশে হিউমিক অ্যাসিডে পরিণত হয় , যা দ্রুত রাসায়নিক আবহবিকার ঘটায় ।

b) চুনাপাথর জাতীয় শিলাস্তরের মধ্যে যেসব প্রাণী বাস করে তাদের নিশ্বাসের সাথে নির্গত CO2 জলের সাথে মিশে কার্বনিক অ্যাসিডে পরিণত হয় । ওই অ্যাসিড চুনাপাথর বিক্রিয়া করে ।

c. উদ্ভিদের পাতা , ফুল , ফল , শিকড় , ডালপালা প্রভৃতি পচে গিয়ে যে অ্যাসিড তৈরি করে , তা থেকে শিলার আবহবিকার তরান্বিত হয় । উদ্ভিদের শিকড় প্রস্বেদনের সময় CO2 ত্যাগ করে যা মাটিতে অবস্থিত জলে দ্রবীভূত হয়ে কার্বনিক অ্যাসিড তৈরি করে এবং শিলার বিয়োজন ও বিচূর্ণন ঘটায়।

Welcome Visitor

Rlearn Education
error: Content is protected !!